শনিবার, ৩১ Jul ২০২১, ১১:২৯ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
‘শেখ হাসিনার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় জনগণ করোনার টিকার আওতায় এসেছে’ আগামী ৫ আগস্টের পর থেকে দেশে কোনো লকডাউন থাকবে না__ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সজীব ওয়াজেদ জয়ের জন্মদিনে যুবলীগের খাদ্য সামগ্রীর বিতরণ  পদ্মা সেতুর পিলারে ফেরির ধাক্কা, ২০ যাত্রী আহত লক্ষ্মীপুরে অসহায় দুস্থরা পেল কেন্দ্রীয় যুবলীগের রেশন কার্ড মাধ্যমে খাদ্য সামগ্রী দেশবাসীকে অগ্রিম ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান কাঁচপুর হাইওয়ে থানার ওসি মোঃ মনিরুজ্জামান (মনির) প্রয়োজনে আবার রিমান্ডে নেওয়া হবে, জানালেন এসপি ত্রিশালে প্রাণিসম্পদ অফিসে হারুন-অর-রশিদ যোগদানের পর ব্যাপক সাফল্য “একুশে পদক প্রাপ্ত কথা সাহিত্যিক বুলবুল চৌধুরী কে গুনীজন সম্মাননা প্রদান করলো মাঞ্জা” মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে জোড়া পিস্তল এবং গুলিসহ সম্রাট কে গ্রেফতারের ঘটনাটি সাজানো__ এলাকাবাসী ও পরিবার।

সারাদেশের ন্যায় ডেমরায় ও বাসা ছাড়ার হিড়িক,বাড়িওয়ালারা নির্বাক

সালে অাহমেদ, ডেমরাঃ

প্রতিদিন মানুষ ঢাকা ছেড়ে চলে যাচ্ছে। কারণ থাকার মতো অর্থনৈতিক সুযোগ হারিয়ে ফেলেছে। করোনাকালীন সময়ে মহাসংকটে পড়েছে মধ্যবিত্ত পরিবারগুলো।

স্বাভাবিক চলার পথে যখন ছন্দপতন হয় তখন যেন হঠাৎ মাথার উপর বাজ পড়ার মতো। করোনার মহামারীতে চাকরি বা ব্যবসা হারিয়ে দিশেহারা অনেকেই।

তিল তিল করে গড়া সংসারে যখন দুমুঠো ভাত জোগাড় করতে হিমশিম খেতে হয় তখন বাড়ি ভাড়ার টাকা জোগাড় করা কতটা সম্ভব?

ডেমরার বাসিন্দা চাকরিজীবী রুবেল বেপারী  বলেন- আমরা ছোট বাসা ভাড়া নিয়েছি সেখানে চলে যাচ্ছি।সাদেক হোসেন ছোট খাটো ব্যবসা করতেন, ব্যবসা ভাল না তাই বাসা ছেড়ে দিয়ে অন্যত্র চলে যাচ্ছেন। কবে আবার পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে

আবার কবে চাকরি পাবে বা ব্যবসার মুখ দেখতে পাবে তা বলা কঠিন তাই অনেকেই স্থায়ীভাবে গ্রামে চলে যাচ্ছেন। গৃহিনী মোমেনা  খাতুন বলেন- ঢাকায় থাকা আর সম্ভব হচ্ছেনা তাই গ্রামে চলে যাচ্ছি।

কোনাপাড়ার চাকরিজীবী শামীম মিশা চাকরি না থাকায় ঢাকা থেকে গ্রামের বাড়ি যাওয়ার কথা জানালেন। অন্যদিকে বাড়ীওয়ালারাও নির্বাক এভাবে একের পর এক বাড়ি খালি হয়ে যাচ্ছে।বামৈলের বাড়ির মালিক মিজানুর রহমান   বলেন- সব রুম খালি হয়ে যাচ্ছে ভাড়া কম দিয়ে থাকতে বললাম তাও থাকছেনা।

এদিকে শিক্ষাবিদ ও সাংবাদিক এম এ সিদ্দিক মিয়া     বলছে,এসময়ে বিকল্প কর্মসংস্থানের কথা ভাবতে হবে। করোনা মহামারীর কারনে সারা বিশ্বের অর্থনীতি যখন স্থবির তখন বাংলাদেশের নিম্নমধ্যবিত্তদের বেঁচে থাকার সকল পথই প্রায় বন্ধ। তারপরও মানুষ স্বপ্ন দেখে বেঁচে থাকার।

করোনা ভাইরাসের এই মহামারীতে কেউ হারিয়েছেনচাকরি কেউ হারিয়েছেন ব্যবসা তাই মালামালি নিয়ে কেউ যাচ্ছেন গ্রামের বাড়ি কেউ বা কম বাড়ি ভাড়ায় যাচ্ছেন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন এই সময়ে প্রয়োজন বিকল্প কর্মসংস্থানের।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2017 dailydeshamar
Design & Developed BY Freelancer Zone