বুধবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ০৯:৩০ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
আমরা নতুনরা যুবলীগকে সৌন্দর্য,সৌহাদ্য ও সমৃদ্ব করে তুলবো __ব্যারিষ্টার তৌফিকুর রহমান পলাশবাড়ী প্রেসক্লাবের ত্রি বার্ষিক সাধারণ নির্বাচনে রবিউল ইসলাম পাতা সভাপতি ও রতন সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হাইমচরে গৃহবধুর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধারঃ পারুলের ময়নাতদন্তে রিপোর্ট আত্মহত্যা নয়, বরং হত্যা চাদঁপুরের হাইমচরে নবীন সমাজ কল্যাণ পরিষদের উদ্যোগে মাস্ক বিতরণ সংসদ সদস্য হাজী মোহাম্মদ সেলিমের স্ত্রী গুলশান আরা সেলিম আর নেই। রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে পুলিশের অভিযানে ২২ জুয়াড়ী আটক কদমতলীতে ধর্ষন মামলার আসামী নাছির গ্রেফতার ৪২ তম জাতীয় বিজ্ঞান সপ্তাহ উদযাপনে হাইমচরে সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান সম্পন্ন জামাত বি এন পি কর্তৃক মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের গণতন্ত্র হত্যা দিবস পালিত হাইমচরে আলগী দক্ষিণ ইউনিয়নে ওয়ার্ড সভা অনুষ্ঠিত

রাজউকের প্ল্যান না নিয়েই বিভিন্ন এলাকায় নির্মাণ হচ্ছে বহুতল ভবন

স্টাফ রিপোর্টারঃ

রাজধানী যাত্রাবাড়ি ডেমড়া মাতুয়াইলে অধিকাংশ বাড়ি নির্মাণের ক্ষেত্রে রাজউকের (রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ) কোন বিধিমালা মানা হচ্ছে না বলে অভিযোগ উঠেছে। বাড়ি নির্মাণের সময় আবশ্যিক খোলা জায়গাগুলো দখল করছেন শতকরা আশিভাগ বাড়ির মালিক। এছাড়া রাজউক থেকে প্ল্যান পাস না করেই বহুতল ভবন নির্মাণ করা হচ্ছে।অধিকাংশ বাড়ি গুলোর নিচতলা বাদে উপড়ের বারান্দা তৈরি করা হচ্ছে রাস্তার উপড়ে। ফলে ঝুঁকিপূর্ণ ভবন নির্মাণ হলেও সংশ্লিষ্ট এলাকার দায়িত্বে নিয়োজিত রাজউকের অর্থরাইজ অফিসার ও ইমারত পরিদর্শক কোনো ব্যবস্থা না নিয়ে দায়িত্বে অবহেলা করছে।
ক্ষতিগ্রস্তরা অসংখ্যবার এ বিষয়ে রাজউকে অভিযোগ দায়ের করলেও কোনো সুরাহা হয়নি। উল্টো অভিযোগকারীরা হয়রানির শিকার হয়েছে বলে জানা গেছে।
ভুক্তভোগীরা জানান, রাজউকের গুটিকয়েক অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারীরা নোটিশের ভয় দেখিয়ে অভিযুক্ত ব্যক্তিদের কাছ থেকে মোটা অংকের উৎকোচ নিয়ে বিষয়টি ধামাচাপা দেন। রাজউকে জমজমাট ঘুষ বাণিজ্য চলছে বলে তাদের অভিযোগ।

সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, রাজধানীর যত্রাবাড়ী, ডেমরা, কোনাপাড়া,মাতুয়াইল,আদর্শবাগ, মেডিক্যাল রোড,মুসলিম নগর,শহর পল্লী, সাইনবোর্ড সহ বিভিন্ন এলাকায় রাজউকের প্ল্যান না নিয়েই একের পর এক বহুতল ভবন নির্মাণ হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট এলাকার দায়িত্বে নিয়োজিত অর্থরাইজ অফিসারদের সাথে কথা বললে তারা জানান, স্থানীয় ২০০৯ সালে এসব এলাকা রাজউকের অধীনে আসলেও সেসব এলাকার ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ঐসব এলাকার ভবন নির্মাণের অনুমোদন দিয়েছিল। ঐসব এলাকার দায়িত্বে থাকা ইমরত পরিদর্শকরা রাজউকের অনুমোদন না নিয়ে যেসব ভবন নির্মাণ হচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছে না কেন? নুরুজ্জামান ০১৭৩০০১৩৯২৩ মুঠোফোনে রাজউকের অথোরাইজড অফিসারকে এমন প্রশ্ন করা হলে তিনি অন্য একটি তদন্ত কমিটির কাজে ব্যাস্ততা দেখিয়ে পরে কথা বলবেন জানান।রাজউকের অন্য এক কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, বিল্ডিং নির্মাণের ক্ষেত্রে রাজউকের বিল্ডিং কোড মানা হচ্ছে না এই মর্মে একাধিক অভিযোগ এসেছে। সংশ্লিষ্ট এলাকার অর্থরাউজ অফিসারদের দায়িত্ব দেয়া হলেও শেষ পর্যন্ত অভিযোগগুলো মিথ্যা প্রমাণিত হচ্ছে ।আগামী পর্বের প্রতিবেদনে অভিযুক্ত হোল্ডিং মালিক ও তাদের তথ্য ও বাড়ীর চিত্র সহকারে সংবাদ ধারাবাহিক ভাবে প্রকাশিত হবে।(চলবে)

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2017 dailydeshamar
Design & Developed BY Freelancer Zone